বরিশাল সিটির উন্নয়নে কোন দুর্নীতি সহ্য করব না,পয়সা নেব না: মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ

Sharing is caring!

বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) নবনির্বাচিত মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ বলেছেন, নগর ভবনের ৩শ’ কোটি টাকার দেনা কোন বিষয় নয়। প্রধানমন্ত্রী জেনে শুনে আমাকে এই দায়িত্ব দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর সু-দৃষ্টি থাকলে ৩শ’ কোটি টাকার দেনা মাথায় নিয়ে দায়িত্বগ্রহণ কোন চ্যালেঞ্জ মনে করছি না। নগর ভবনের দেনা পরিশোধ না হওয়া পর্যন্ত বেতন-ভাতাও (সম্মানী) নিব না।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টায় আনুষ্ঠানিকভাবে বরিশাল সিটি মেয়রের দায়িত্বগ্রহন শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে সাদিক আবদুল্লাহ আরও বলেন, কোন পয়সা (পার্সেন্টেজ) নেব না, তাই কারও দুর্নীতি সহ্য করব না। আইন অনুযায়ী সিটি করপোরেশন পরিচালিত হবে। সিটি করপোরেশনের কোন কাউন্সিলরকেও ঠিকাদারী কাজ করতে দেওয়া হবে না।

নগরীর ভঙ্গুর রাস্তাঘাটসহ অবকাঠামো পুননির্মান ও মেরামত, বর্ধিত এলাকার উন্নয়ন এবং নগরীকে মাদক মুক্ত করতে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়ার কথা বলেন মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ।

এছাড়া নগর ভবনের অতীত দুর্নীতি তদন্ত করে সবার জন্য সতর্ক বার্তা দিতে চান তিনি। বরিশালবাসীর প্রত্যাশা পূরণে শেষদিন পর্যন্ত কাজ করে যাওয়ার কথা বলেন দেশের সর্বকনিষ্ট এই সিটি মেয়র সাদিক।

এর আগে বিকেল ৩টা ২০ মিনিটের দিকে নগর ভবনের ফটকে প্রবেশ করেন বরিশাল সিটির ৪র্থ পরিষদের মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ ও তার নেতৃত্বাধীন পরিষদ। নগর ভবন চত্ত্বরে প্রবেশের পরপরই সাদিক আবদুল্লাহকে ফুল দিয়ে বরণ এবং লাল গালিচা সংবর্ধনা দেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। পরে তিনি নগর ভবনে মেয়রের কক্ষে বসে উর্ধ্বতন সরকারী কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি এবং সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতাদের উপস্থিতিতে একটি অফিস ফাইলে সাক্ষরের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্বগ্রহণ করেন। এ সময় বিশেষ দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

পরে নগর ভবনের সামনে সিটি মেয়র ও কাউন্সিলরদের অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ। বিভাগীয় কমিশনার রাম চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে অভিষেক অনুষ্ঠানে মেয়র সাদিক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা এবং তার সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহীতার সঙ্গে নগরভবনের সকল কার্যক্রম পরিচালনার কথা বলেন।

‘বৃক্ষ তোমার নাম কি, ফলে পরিচয়’- এ প্রবাদ বাক্য উচ্চারন করে মেয়র সাদিক বলেন, কর্মের মাধ্যমেই তিনি তার যোগ্যতার প্রমান দেবেন। বরিশাল নগরীর উন্নয়নে মঙ্গলবার একনেকের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৩০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন জানিয়ে সাদিক আবদুল্লাহ বরিশাল নগরীকে দেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নগরীতে পরিনত করতে প্রয়োজনীয় বরাদ্দ সরকার প্রধানের কাছ থেকে আদায় করে আনার প্রতিশ্রুতি দেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস এমপি, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এসএম ইমামুল হক, মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল,সাধারন সম্পাদক একে এম জাহাঙ্গীর,বঙ্গবন্ধু পরিষদের কেন্দ্রিয় সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন আহম্মেদ বীর বিক্রম, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোশারফ হোসেন, ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক এসএম আজিয়র রহমান, বিশিস্ট আইনজীবী ও সাংবাদিক মানবেন্দ্র বটব্যাল,বাংলাদেশ কৃষকলীগ  কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সেরনিয়াবাত মইন আবদুল্লাহ, জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য সেরনিয়াবাত আশিক আবদুল্লাহ, বাংলাদেশ জাসদের কেন্দ্রিয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ বাদল, মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি ও সিটি কাউন্সিলর মুরতজা আবেদীন, করপোরেশণের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইসরাইল হোসেন।

সিটি কাউন্সিলর ও নগর আওয়ামী লীগের যগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী নইমুল ইসলাম লিটুর সঞ্চালানায় অনুষ্ঠানে পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু সহ বিভিন্ন উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়রগন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ’র দায়িত্বগ্রহণ এবং অভিষেক অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে নগর ভবনসহ আশপাশের এলাকায় কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয় বলে জানিয়েছেন কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মো. নুরুল ইসলাম।

About banglarmukh official

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*