ফেসবুকে বাড়ছে মিন্নি নামের ফেইক আইডি, ছড়ানো হচ্ছে বিভ্রান্তি

Sharing is caring!

বরগুনায় প্রকাশ্য দিবালোকে স্বামী শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতেই স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে নিয়ে নানান গুজব ছাড়া হচ্ছে বলে দাবি স্বজনদের।

এরইমধ্যে মিন্নির ছবি দিয়ে নামও ঠিক রেখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খোলা হয়েছে বেশ কিছু আইডি। পাশাপাশি তথ্য প্রমাণ ছাড়াই নানান অভিযোগ তোলা হচ্ছে, দেওয়া হচ্ছে নানান সংবাদ। যা নিয়ে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে খোদ প্রশাসনসহ মিন্নি ও রিফাতের পরিবার এবং স্থানীয়দের।

রিফাতের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেমন মিন্নিকে নিয়ে তোলপাড় চলছে, তেমনি শনিবার (২৯ জুন) থেকে শুরু হয়েছে নানান ধরনের গুজব ছড়ানো। যারমধ্যে কখনও নগরের নতুল্লাবাদ বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে নয়ন বন্ডকে আটকের গুজব, আবার কখনো সয়ং বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবির মোহাম্মদ হোসেনকে প্রত্যাহারের খবরও ছড়িয়ে পড়ছে।

ফলে হত্যাকারীদের গ্রেফতারের থেকেও এসব বিষয় সামনে চলে আসছে, যদিও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলছেন, এ মুহুর্তে রিফাতের হত্যাকারীদের গ্রেফতারের থেকে কোনো বিষয় নিয়ে ভাবছেন না তারা। তবে কিছু ঘটনার কারণ যে পরবর্তীতে খতিয়ে দেখা হবে তারও ইঙ্গিত রয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

এদিকে রিফাত হত্যার পর থেকেই জড়িতদের ফাঁসির দাবি জানিয়ে আসছেন তার বাবা-মা, স্ত্রী-শশুরসহ স্বজনরা। মিন্নির মতে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক বা বিভিন্নভাবে তার বিরুদ্ধে যে লেখালেখি বা কথা ছড়ানো হচ্ছে, তা সত্য নয়। যারা এ কাজ করছেন তারা হত্যাকারীদের বাঁচানোর চেষ্টা করছেন। বিষয়টি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী খতিয়ে দেখলে খুনিদের সঙ্গে অপপ্রচারকারীদেরও সম্পৃক্ততা পাবে বলেও আশা করেন মিন্নি।

মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর জানান, আগে থেকেই নয়ন বন্ড ও তার সহযোগীরা নানাভাবে আমাদের হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিলো। তারা নানানভাবে ক্ষতি করার চেষ্টা করছে, এই নিয়ে আমরা আতঙ্কের মধ্যে রয়েছি। মিন্নি একা তার স্বামীকে বাচানোর চেষ্টা করেছে, তারপরও শেষ রক্ষা করতে পারেনি, অল্প বয়সে বিয়ের ২ মাসের মাথায় বিধবা হলো সে। আমরা চাই রিফাতের হত্যাকারীদের ফাঁসি হোক।

অপরদিকে, মিন্নির স্বজনদের দাবী, নয়ন বন্ড ও তার সহযোগীরা বিয়ের আগে ও পরে রাস্তাঘাটে নানানভাবে মিন্নিকে বিরক্ত করতো। হুমকি-ধমকি দিয়ে জোর করে নানান কাজ করিয়ে নিতো। নয়ন বন্ডদের বিরুদ্ধে আগে থেকেই কোনো প্রতিবাদ করার সাহস ছিলো না করো। তাই মিন্নির পরিবারকেও চুপ করেই সইতে হয়েছে সব।

বুধবার (২৬ জুন) সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে প্রকাশ্যে স্ত্রীর সামনে রিফাত শরীফ নামে এক যুবককে কুপিয়ে জখম করে সাবেক স্বামী নয়ন বন্ড ও তার সহযোগীরা।

গুরুতর আহতাবস্থায় রিফাতকে প্রথমে বরগুনা সদর হাসপাতাল ও পরে বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল (শেবাচিম) কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। পরে ওই বিকেল সোয়া ৪ টার দিকে অপারেশন থিয়েটারে অস্ত্রোপচারের সময় রিফাতের মৃত্যু হয়।

মৃত্যুর পর রিফাতের বাবা ০০৭ গ্রুপের প্রধান নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজী ও রিসান ফরাজীসহ ১২ জনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাত বেশ কয়েকজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

About banglarmukh official

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*