চরকাউয়া খেয়াঘাটের যাত্রী ছাউনিতে জন্ম নেয়া শিশু হাসান ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে

Sharing is caring!

নিজস্ব প্রতিবেদক :

বরিশাল নগরের চরকাউয়া খেয়াঘাট এলাকার যাত্রী ছাউনিতে জন্ম নেয়া ছেলে সন্তানটিকে তার মায়ের সাথে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রয়েছেন।

বরিশাল মেট্রোপলিটনের কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের তত্ত্বাবধায়নে নিরাপত্তাজনিত কারনে শিশুটিকে তার মায়ের সাথে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রয়েছে।

সেখানে তাদের দেখভাল করার জন্য নারী পুলিশ সদস্যদের সার্বোক্ষনিক দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আর পুলিশের নারী সদস্য রিপা আক্তারসহ সকলেই বেশ ব্যস্ত সময় পাড় করছেন শিশুটি ও তার মায়ের দেখভালের মধ্যদিয়ে।

বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) শিশুটির শারিরীক অসুস্থতা দেখা দিলে তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের চিকিৎসকদের কাছে নিয়ে আসা হয়। তবে সার্বিকভাবে ৭ দিন বয়সী এই শিশুটি ভালো রয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

শিশুটির সাথে আসা এসআই আকলিমা জানান, ৭ দিন বয়সী এই ছেলে শিশুটির নাম রাখা হয়েছে হাসান। তার মা মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন, তাই তার মা ও শিশুটিকে কোতোয়ালি মডেল থানার পাশে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখা হয়েছে। যেখানে আমাদের নারী সদস্যরা শিশুটি ও তার মায়ের দেখভাল করছে।

এদিকে হাসপাতালে দায়িত্বরত এসআই নাজমুল হুদা জানান, ওই নারীর স্বজনদের খোজা হচ্ছে, পাশাপাশি তিনি যাতে সুস্থ হয়ে উঠতে পারেন সে দিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার (১১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় বরিশাল নগরের চরকাউয়া খেয়াঘাট এলাকার যাত্রী ছাউনিতে মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারী ফুটফুটে একটি বাচ্চা প্রসব করেন। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাদের বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

খবর পেয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম-পিপিএম মানসিক ভারসাম্যহী ওই নারীসহ শিশুটির খোজ-খবর নিতে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান।

এসময় তিনি বাচ্চা ও মানসিক ভারসাম্যহীন (পাগলী) মায়ের চিকিৎসার খোজ খবর নেন। পাশাপাশি বাচ্চা ও মায়ের সার্বাধিক চিকিৎসা সেবা দিতে শেবাচিম কর্তৃপক্ষ ও সমাজ সেবা অধিদপ্তরের সংশ্লীষ্টদের সাথে কথা বলেন। একইসাথে শিশুটি ও তার মায়ের নিরাপত্তার স্বার্থে মহিলা পুলিশ নিযুক্ত করেন। চিকিৎসা শেষে তাদের ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে নেয়া হয়।

Print Friendly, PDF & Email

About banglarmukh official

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*