চিকিৎসকের হেলায় স্ত্রীর মৃত্যু, ৪৬ লাখ টাকা পেলেন আমিরাত প্রবাসী

Sharing is caring!

চিকিৎসকের অবহেলায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের একটি হাসপাতালে স্ত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলায় প্রায় ৪৬ লাখ টাকা (৩৯লাখ রূপি) ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন এক প্রবাসী। হাসপাতালে চিকিৎসকের অবহেলায় স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে বলে মামলা করেছিলেন ভারতীয় ওই প্রবাসী। শারজাহর একটি আদালত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ওই ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, শারজাহভিত্তিক ডা. সানি মেডিক্যাল সেন্টার ও এই হাসপাতালের চিকিৎসক দর্শন প্রভাত রাজারাম পি নারায়নকে এই ক্ষতিপূরণ শিগগিরই ওই প্রবাসীকে বুঝিয়ে দিতে বলেছেন। ৩২ বছর বয়সী ভারতীয় ওই প্রবাসীর নামজোসেফ আব্রাহাম।

গালফ নিউজ বলছে, ক্ষতিপূরণের অর্থ আব্রাহাম এবং তার দুই সন্তানের মাঝে ভাগ করে দিতে বলেছেন শারজাহর আদালত। আব্রাহাম তার স্ত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় ১০ লাখ দিরহাম ক্ষতিপূরণ চেয়ে আদালতের কাছে মামলা দায়ের করেছিলেন।

ভারতের কেরালার কোল্লাম জেলার বাসিন্দা ব্লেসি টম শারজাহ ইউনিভার্সিটি হাসপাতালে নার্স হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ২০১৫ সালের নভেম্বরে ব্লেসি টম স্তন সংক্রমণে আক্রান্ত হয়ে সানি মেডিক্যাল সেন্টারে ভর্তি হয়েছিলেন।

ওই সময় কোনো ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই হাসপাতালের চিকিৎসক দর্শন প্রভাত রাজারাম পি নারায়ন তাকে (ব্লেসি) অ্যান্টিবায়োটিক ইনজেক্শন দেন। এই ইনজেকশনের প্রতিক্রিয়ায় দুই সন্তানের মা এই নারী সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেন।

পরে শারজাহর আল কাশিমি হাসপাতালে তাকে দ্রুত ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মারা যান তিনি। হাসপাতালের ডেথ সার্টিফিকেটে বলা হয়, অ্যানাফিল্যাকটিক শকের কারণে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন ব্লেসি।

তার মৃত্যুর পর চিকিৎসক নারায়ন দ্রুত আরব আমিরাত থেকে পালিয়ে যান। গত ১৭ জুন শারজাহ আদালত ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগের সত্যতা পায়। পরে নিহত ব্লেসির পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন আদালত।

Print Friendly, PDF & Email

About banglarmukh official

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*