যুবাদের চার দিনের ম্যাচ নিয়ে বরিশালে খুশির জোয়ার

Sharing is caring!

বাংলার মুখ ডেস্ক:

আয়তনের দিক থেকে দেশের সবচেয়ে বৃহৎ বরিশাল বিভাগীয় স্টেডিয়াম। নগরীর বান্দ রোড লাগোয়া কীর্তনখোলা নদীর তীরে ২৯ একর ১৫ শতাংশ জমির ওপর নয়নাভিরাম এই স্টেডিয়াম প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬৬ সালে। ২০০৬ সালে প্রায় ২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে আধুনিকায়ন করা হয় বরিশাল স্টেডিয়ামের।

আধুনিক এই স্টেডিয়ামে রয়েছে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের সব সুযোগ-সুবিধা। আধুনিকায়নের সময় ক্রিকেট খেলাকে গুরুত্ব দিয়ে তৈরি করা হয় বিভিন্ন অবকাঠামো। তবে স্টেডিয়ামটি নির্মাণের পর অনুষ্ঠিত হয়নি কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ।
শুধু তাই নয়, নিয়মিত অনুষ্ঠিত হয় না প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগ ফুটবল ও ক্রিকেট এবং প্রিমিয়ার লিগও। এমনকি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের (বিপিএল) বিগত আসরগুলোর একটি ম্যাচও অনুষ্ঠিত হয়নি বিভাগীয় শহর বরিশালে।

বিভাগীয় এ স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের (বিপিএল), প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগ ফুটবল ও ক্রিকেট এবং প্রিমিয়ার লিগ আয়োজনের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে আসছিলেন বরিশালবাসী। তাদের দাবির কারণে টনক নড়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি)। নড়েচড়ে বসেছে জেলা ক্রীড়া সংস্থাও।

অবশেষে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ৪ দিনের ম্যাচ দিয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের অনাস্বাদিত স্বাদ পেতে যাচ্ছে বরিশালবাসী। ৪ দিনের এই ম্যাচটি শুরু হবে আগামী ২৬ অক্টোবর।

barishal-1

এরই মধ্যে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ন্যাশনাল গেমস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার মোহাম্মদ কাওসারের নেতৃত্বে একটি দল বরিশাল বিভাগীয় স্টেডিয়াম (আব্দুর রব সেরনিয়াবাত) পরিদর্শন করে গেছেন। প্রস্তত করা হচ্ছে মাঠ। এ নিয়ে স্টেডিয়ামের পরিচালনার দায়িত্বে থাকা বরিশাল জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তাদের ব্যস্ততার অন্ত নেই।

অন্যদিকে বরিশাল জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন হয় না তিন দশকের বেশি সময় ধরে। এবার নির্বাচনের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। সবকিছু মিলিয়ে বরিশাল ক্রীড়াঙ্গনে সুবাতাস বইতে শুরু করেছে।

বরিশাল জেলা দলের সাবেক ক্রিকেটার সাইফুল ইসলাম বাশার বলেন, ‘আগে এখানে প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগ ফুটবল ও ক্রিকেট এবং প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেট খেলা হতো নিয়মিত। তৃতীয় বিভাগ ক্রিকেট অংশগ্রহণ করতো অর্ধশতাধিক দল; কিন্তু এখন সে সব অতীত। খেলা বাদ দিয়ে স্টেডিয়ামের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ব্যস্ত এখানকার প্রভাবশালীরা। পছন্দের ব্যক্তিদের দায়িত্বে বসাতে তিন দশকের বেশি সময় ধরে প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক নির্বাচন হয় না জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থায়।’

সাবেক ক্রিকেটার সাইফুল ইসলাম বাশার আরও বলেন, ‘বরিশালে আন্তর্জাতিকমানের একটি স্টেডিয়াম থাকার পরও জাতীয় লিগে বরিশালের লোকাল ভেন্যু হিসেবে ব্যবহার হয় ঢাকার ফতুল্লা স্টেডিয়াম। ২০০৬ সালে স্টেডিয়াম পুনঃর্নিমাণের পর শুধুমাত্র ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত হয় দুটি ম্যাচ। এছাড়া বরিশালে নিয়মিত কোনো ক্রিকেট লিগ বা টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। প্রতিযোগিতামূলক খেলা না থানায় বরিশাল থেকে নতুন খেলোয়াড়ও সৃষ্টি হচ্ছে না। নতুন খেলোয়াড় পেতে হলে ফুটবলসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক খেলা, প্রিমিয়ার লিগ, ১ম ও দ্বিতীয় বিভাগ খেলা অত্যন্ত জরুরি।

বরিশাল বিভাগীয় ক্রিকেট দলের কোচ ও সাবেক ক্রিকেটার তাসরিকুল ইসলাম টোটাম জানান, দ্বিতীয় বিভাগ ক্রিকেট লিগ হয় না ৫ বছর ধরে। প্রিমিয়ার লিগ ও প্রথম বিভাগ ক্রিকেট লিগও মাঠে গড়ায় না নিয়মিত। নিয়মিত খেলা না হওয়ায় নতুন খেলোয়াড় সৃষ্টি হচ্ছে না বরিশাল থেকে।

তাসরিকুল ইসলাম টোটাম বলেন, বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ৪ দিনের ম্যাচটি আশার আলো দেখাচ্ছে। ম্যাচটি ঘিরে স্টেডিয়ামকে নতুন করে সাজানো হয়েছে। আশা করছি, এখন থেকে এই স্টেডিয়ামে নিয়মিত প্রিমিয়ার লিগ, প্রথম বিভাগ ও দ্বিতীয় বিভাগ ক্রিকেট লিগ আয়োজন করা হবে। বরিশাল থেকে নতুন নতুন খেলোয়াড়ও উঠে আসবে।

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ৪ দিনের ম্যাচটি ঘিরে স্টেডিয়ামকে নতুনভাবে সজ্জিত করা হয়েছে। প্যাভিলিয়ন, প্রেসবক্স, ড্রেসিং রুম, ভিআইপি গ্যালারিতে নতুন আসবাবপত্র শোভা পাচ্ছে। ঢাকা থেকে কিউরটের এনে আউটফিল্ড ও উইকেট তৈরি করা হয়েছে। ম্যাচ আয়োজনের সব প্রস্তুতিও সম্পন্ন করা হয়েছে। এখন শুধু মাঠে ম্যাচ গড়ানোর অপেক্ষা।

বিসিবি’র ন্যাশনাল গেমস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার মোহাম্মদ কাওসার বলেন, ‘বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ৪ দিনের ম্যাচটি আয়োজনের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ভেন্যু হিসেবে বরিশাল স্টেডিয়ামকে পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। এ ম্যাচটি সফলভাবে সম্পন্ন হলে বরিশাল স্টেডিয়ামে আন্তর্জাতিক ম্যাচ, বিপিএল ও জাতীয় লিগের খেলা আয়োজনের উদ্যোগ নেয়া হবে।’

বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ দলের বিপক্ষে চারদিনের এই ম্যাচটি খেলতে বুধবার বিকেলে আকাশপথে শ্রীলংকা অনুর্ধ্ব-১৯ দল বরিশাল এসে পৌঁছে। এর আগে সকালে আকাশপথে বরিশাল বিমান বন্দরে এসে পৌঁছে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল। বৃহস্পতিবার সকালে স্টেডিয়ামে অনুশীলন করে বাংলাদেশ দলের যুবারা। এরপর দুপুরে অনুশীলন করে শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

প্রথমবারের মতো বরিশাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া যুব আন্তর্জাতিক ম্যাচের বিস্তারিত জানাতে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান বলেন, ‘এই আয়োজন সফল হলে আগামীতে বরিশালে বড় পরিসরে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনের পথে আরেকধাপ এগিয়ে যাবে। প্রথমবার আয়োজিত যুব আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ সফল করতে বরিশালবাসীসহ গণমাধ্যমের পূর্ণ সহযোগীতা প্রয়োজন।’

নতুন প্রজন্মকে মাঠে গিয়ে খেলা দেখার আহ্বান জানান তিনি। দুই দলের খেলোয়াড়দের নিরাপত্তাসহ তাদের থাকা খাওয়া এবং বিনোদনের সকল ব্যবস্থা করা হয়েছে। স্টেডিয়ামে দর্শকরা বিনামূল্যে খেলা উপভোগ করতে পারবে বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক আলমগীর খান আলো, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মো. শহীদুল ইসলাম,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য সচিব প্রশান্ত কুমার, বিসিবি’র সিনিয়র সিকিউরিটি কো অর্ডিনেটর শামীম কালাম আজাদ ও সিকিউরিটি কর্মকর্তা মো. আরিফুর রহমান সহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচন প্রসঙ্গে জানতে জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘নির্বচান নিয়েও আলোচনা অনেক দূর এগিয়েছে। নির্বাচন নিয়ে যেসব জটিলতা ছিল- তা অনেকটাই কেটেছে। শিগগিরই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

Print Friendly, PDF & Email

About banglarmukh official

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*